এই ছবিগুলি আপনাকে দেখাবে কতটা বেদনাদায়ক কিন্তু সুন্দর একটি নতুন জীবনকে জন্ম দেওয়া…

একটি শিশুর জন্ম সারা বিশ্বের সমস্ত সম্প্রদায়ের মধ্যে উদযাপন করা হয়। এটি একটি পরিবারের সব সদস্যদের জন্য বিশেষ অনুষ্ঠান, বিশেষ করে মা দের জন্যে।

যদিও উন্নত চিকিৎসার মাধ্যমে শিশু প্রসব এবং পড়ে বহির্ভূত যত্নকে সহজ করে তোলে কিন্তু শিশু জন্মের সময় নারীরা প্রসবজনিত একটি ব্যথা অনুভব করে তীব্র যন্ত্রণা পায়।

সন্তানের জন্মের সময় আত্মীয়রা মা দের বিশেষভাবে ব্যথা নিশ্চিত করতে সাহায্য করে যখন একটি স্বাভাবিক ডেলিভারি হয়। কিন্তু প্রসবরুমে তার পাশে যখন কোনও পরিবার থাকে না তখন এটি কঠিন হয়ে পড়ে। বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন নিয়ম আছে। কিছু মাতৃত্ব হাসপাতাল স্বামীসহ পরিবারের সদস্যরা প্রসবরুমে উপস্থিত থাকার অনুমতি দেয়, অন্যরা না।

Beyond Kolkata ভিয়েতনামের এক মহিলার সম্প্রতি প্রসবরুমের কিছু ছবি আপনাদের জন্যে এনেছে তা দেখুন। এই ছবিগুলি তার ব্যথার ঝলক দেখায় এবং তারপর শিশুর জন্মের পরে স্বস্তি বোধ দেখায় ।

একবার দেখুন।

একটি স্বাভাবিক প্রসবের নির্বাচন।

এই ছবিতে মহিলা এক স্বাভাবিক প্রসবের জন্য গেছে বলে মনে হয়।

ধাত্রীবিদ্যা বিশারদ

যখন তিনি বড় বিষয়টির জন্য প্রস্তুত হচ্ছিলেন, তখন তার পাশে ধাত্রীবিদ্যা বিশারদরা ছিল যারা প্রসব প্রক্রিয়াকে তত্ত্বাবধান করবেন।

সমর্থন সিস্টেম।

যখন প্রসব বেদনা আসে তখন তার স্বামী সহায়ক ছিল।

একে অপরকে জড়িয়ে ধরেছিলেন।

স্বামী তার ব্যথা কমাবার জন্য তার স্ত্রীকে জড়িয়ে ধরেছিলেন।

একসাথে ব্যথা অনুভব করা ।

বলা হয় যে আপনার সঙ্গীর সাথে আপনি পাশে দাঁড়িয়ে থাকার সময় ব্যথা কম হয়। এটা এখানে সত্য প্রদর্শিত ।

যখন সে তার মন তৈরি করছে।

গরম জলের টবের মধ্যে, তিনি আগত প্রসব যন্ত্রণার জন্য নিজেকে প্রস্তুত করছেন ।

ব্যথা পর্যায়।

জন্ম দেওয়ার সময় অতিরিক্ত ব্যথা দেখা যায় এই ছবিতে।

তার পাশে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে ছিল।

এবং এতে ব্যথা কম নাও হতে পারে কিন্তু এটি মনকে হালকা করতে সাহায্য করে ।

তার সাথে দৃঢ় ভাবে থাকা।

প্রসবের চূড়ান্ত পর্যায়ে স্বামী তাকে শক্তি দিতে তার পাশে দাঁড়িয়ে ছিলেন।

একসঙ্গে ধাক্কা দিচ্ছেন ।

প্রত্যেক পর্যায়ে তাকে সাহায্য করা এবং শিশুর জন্ম দেওয়ার জন্য একসঙ্গে সাহায্য করা ।

শক্ত করে ধরে থাকা।

তিনি সারা প্রক্রিয়া জুড়ে তাকে ধরে সব ব্যথা বহন করেন।

এবং এখন এটি এসেছে।

প্রসব ব্যথা কিছু ঘন্টা যাওয়া পরে, শিশু বেরিয়ে এসেছিল।

নতুন জীবন নিযুক্ত।

দুনিয়া জুড়ে সব বাবা-মায়েরা নতুন জীবন গ্রহণ করেন।

সুখী বোধ করা ।

নবজাত শিশুর জন্ম হয় ব্যথা, যন্ত্রণা এবং উদ্বেগের মধ্যে, যা দম্পতি বিশেষ করে মা ৯ মাসের মধ্যে যায়। দম্পতি সন্তানের জন্মের পরে আশীর্বাদ ভোগ করেন।

শিশুর সুন্দর চেহারা।

নতুন জন্মের শিশুটি আরাধ্য দেখতে। তাই না ?

এই ছিল আজকের মতো !

আমি এই ছবিতে স্পষ্ট এবং আরাধ্য খুঁজে পেয়েছি। আপনি তাদের পছন্দ করলে আমাকে জানান। নীচের অংশে মন্তব্য করুন।

জেনে নিন , ১ হাজার বছরের কাজা নামাজ আদায় হবে যে দোয়াটি পাঠ করলে।

১ হাজার বছরের কাজা নামাজ আদায় হবে যে দোয়াটি পাঠ করলে।
দোয়ার ফযীলত ঃ এ দোয়াটির ফযীলত ও মর্তবা সম্বন্ধে ছাহাবীদের মধ্যে পরস্পর এখতেলাফ রয়েছে । আমিরুল মু’মিনীন হযরত ওমর (রা) বলেন যে, এ দোয়া যে ব্যক্তি শ্রদ্ধাসহকারে পাঠ করবে তার ছয়শত বৎসরের আদায় করা নামাজ এর বরকতে আল্লাহর দরবারে কবুল হয়ে যাবে ।

১ হাজার বছরের কাজা নামাজ আদায় হবে যে দোয়াটি পাঠ করলে।

অনুরুপ হযরত ওসমান (রা) বলেছেন, সাতশত বৎসরর এবং হযরত আলী কাররাাল্লাহু ওয়াজহু বলেছেন, যদি এ দোয়া পাঠকারীর এক হাজার বৎরের নামাজ কাজা হয়ে থাকে তাও এ দোয়ার বরকতে আল্লাহ্ তা’আলার দরবারে কবুল হয়ে যাবে । যা হোক হযরত রাসূলে করীম (স) এর মহিমায় এ পবিত্র দোয়ার ফযীলত বর্ণনাকালে ছাহাবীগন প্রশ্ন করলেন,

১ হাজার বছরের কাজা নামাজ আদায় হবে যে দোয়াটি পাঠ করলে।

হে আল্লাহর রাসূল ! মানুষের এরুপ ছয়, সাতশত ও হাজার বৎসর (হায়াত) বয়স কোথায় ? যে এর নামাজ কবুল হবে ? তখন রাসূলুল্লাহ (স) বললেন যে, এ দোয়া পাঠকারীর বাপ, দাদা, পরদাদা ও আত্মীয়স্বজন, পাড়া-প্রতিবেশীদের নাম কবুল হয়ে বৎসর পূরন করা হবে ।

১ হাজার বছরের কাজা নামাজ আদায় হবে যে দোয়াটি পাঠ করলে।

উচ্চারন

আলহামদু লিল্লাহি আ’লা কুল্লি নি’মাতিহী, আলহামদু লিল্লাহি আ’লা কুল্লি আ-লা-ইহী, আলহামদু লিল্লাহি ক্বাবলা কুল্লি হালিন, ওয়া ছাল্লাল্লাহু আ’লা খাইরি খালক্বিহী মুহাম্মাদিওঁ ওয়া আলিহী ওয়া আছহাবিহী আজমাঈ’ন, বিরাহমাতিকা ইয়া আরহামার রাহিমীন ।

দোয়ার ফযীলত
এ দোয়াটির ফযীলত ও মর্তবা সম্বন্ধে ছাহাবীদের মধ্যে পরস্পর এখতেলাফ রয়েছে । আমিরুল মু’মিনীন হযরত ওমর (রা) বলেন যে, এ দোয়া যে ব্যক্তি শ্রদ্ধাসহকারে পাঠ করবে তার ছয়শত বৎসরের আদায় করা নামাজ এর বরকতে আল্লাহর দরবারে কবুল হয়ে যাবে । অনুরুপ হযরত ওসমান (রা) বলেছেন, সাতশত বৎসরর এবং হযরত আলী কাররাাল্লাহু ওয়াজহু বলেছেন, যদি এ দোয়া পাঠকারীর এক হাজার বৎরের নামাজ কাজা হয়ে থাকে তাও এ দোয়ার বরকতে আল্লাহ্ তা’আলার দরবারে কবুল হয়ে যাবে । যা হোক হযরত রাসূলে করীম (স) এর মহিমায় এ পবিত্র দোয়ার ফযীলত বর্ণনাকালে ছাহাবীগন প্রশ্ন করলেন, হে আল্লাহর রাসূল ! মানুষের এরুপ ছয়, সাতশত ও হাজার বৎসর (হায়াত) বয়স কোথায় ? যে এর নামাজ কবুল হবে ? তখন রাসূলুল্লাহ (স) বললেন যে, এ দোয়া পাঠকারীর বাপ, দাদা, পরদাদা ও আত্মীয়স্বজন, পাড়া-প্রতিবেশীদের নাম কবুল হয়ে বৎসর পূরন করা হবে ।

সুবাহানাল্লাহ্ । (সূত্র : ছহীহ্ নূরাণী অজিফা শরীফ)

ইন্টারনেটে ভাইরাল, স্কুলের বাথরুমে নেওয়া এই সেল্ফি টা দেখে সবার হুঁশ উড়ে গেল,দেখুন কি এমন দেখলো

এই সেল্ফি এর যুগে আমরা যখন তখন বন্ধুদের সাথে সেল্ফি তুলে থাকি যাতে আমাদের বন্ধুদের সাথে কাটানো সুন্দর মুহূর্ত গুলো ফ্রেমবন্দি থাকে ।
কিন্তু অনেক সময় ছবি তোলার পর সেই ছবিতে এমন কিছু উঠে যায় যাকে পরে দেখার পর আমরা নিজেরাই ভয় পেয়ে যায় ।
এমনই কিছু হলো ফিলিপিন্স এর একটা স্কুলে দুজনের মেয়ের সাথে । দেখুন এরা এমন কি দেখলো যেটা দেখে তারা ভয় পেয়ে গেল ।

এটা সেই স্কুল যার বাথরুমে সেলফি নিয়েছিল দুজন ছাত্রী ।

এটি রিজাল হাই স্কুল ফিলিপিন্সের , যার বাথরুমে দুজন ছাত্রী সেলফি নেওয়ার পর সেই ছবি দেখে নিজেরাই ভয় খেয়ে গেল ।

এই হলো সেই সেলফি যেটা দেখে সবাই ভয় পেয়ে গেল ।

এই ছবিটা দেখার পর সবার ঘাম বেরিয়ে গেছিল ভয়ে ।
আপনি কি ছবিটার পিছনে কিছু দেখতে পাচ্ছেন ?

ভালো করে দেখুন পিছনে কালো রঙের জিনিস দেখতে পাবেন ।
দেখুন এটা দেখে আপনার কি মনে হচ্ছে ??

এই ফটো টার পিছনে একটা ছেলে বসে আছে যেটা দেখার পর মেয়েগুলোর হুঁশ উড়ে গেছিল ।কিন্তু মেয়ে গুলোর মতে তারা যখন বাথরুমে ঢুকেছিল তারা ছাড়া আর কেউ বাথরুমে ছিল না ।

এই স্কুলে এইটাই এরকম প্রথম ঘটনা নয় ,এর আগেও অনেক ভুতুড়ে কান্ড হয়েছে ।

ফেসবুকে ট্রলের প্রতিবাদে স্তন বৃদ্ধির অপারেশন করালেন সোনাম কাপুর , ক্লিক করে বিস্তারিত জানুন

২০০৭ সালে saawariya মুভিতে ফার্স্ট ডেবিউ করেন অনিল কন্যা সোনাম কাপুর । তারপর থেকেই বেশ কয়েকটি অসাধারন মুভি উপহার দিয়েছেন সোনাম । ২০১৬ সালে সোনাম কাপুর অভিনীত Neerja মুভিটি ৩ টি ন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে । অভিনয়ে তার জুরি মেলা ভার কিন্তু বেশ কিছুদিন ধরেই নায়িকার শরীরের গঠন নিয়ে বেশ কিছু বিতর্কিত পোস্ট করা হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়াতে । যদিও নায়িকা এই ব্যাপারে কখনই সরাসারি ভাবে কিছুই বলেন নি । কিন্তু এই বার সেই হয়ত সেই পোস্ট এতটাই মাত্রা ছাড়া হয়েছে যে নায়িকা তার প্রতিবাদে স্তন বৃদ্ধির অপারেশন করিয়েছেন । এখানে রইল সোনাম কাপুরের কিছু লেটেস্ট ফটোশুটের ছবি

এই স্তন অপারেশনের ব্যাপারে নায়িকা সরাসরি কিছু বলেন নি , তবে বি টাউনে এমন টাই কানাঘুষো শোনা যাচ্ছে । এখন এই ব্যাপারে একমাত্র সোনাম কাপুরই পারেন ঘটনার সত্যতা প্রকাশ করতে

জেনে নিন, ছোট্ট এই দোয়াটি ছাড়া কোনো আমলই আল্লাহর কাছে কবুল হয় না ।

উম্মতে মোহাম্মাদীর নাজাতের জন্য অনেক সুযোগ করে দিয়েছেন মহান আল্লাহ তায়ালা। আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য শষে নবীর উম্মত হিসেবে বরকতময় অনেক দোয়ার রয়েছে। রয়েছে অসংখ্য আমলের ব্যবস্থা। তবে প্রতিটি আমলের আগে একটি দোয়া পাঠ করতে হয়। কেননা এই দোয়াটি পাঠ না করলে কোনো আমলই আল্লাহর কাছে কবুল হবে না।

দোয়াটি হল— বিসমিল্লাহির রহমানির রহিম।

রাসুল (স.) বলেন, ‘যে আমল বিসমিল্লাহির রহমানির রহিম পাঠ করে শুরু হয়, তা কখনও আল্লাহ কর্তৃক প্রত্যাখাত হয় না।’

জাবের (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, ‘আমি রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে বলতে শুনেছি যে, বিসমিল্লাহ প্রার্থনা কবুল হওয়ার প্রথম শর্ত। কোনো ব্যক্তি যখন নিজ বাড়িতে প্রবেশের সময় ও আহারের সময় আল্লাহ তায়ালাকে স্মরণ করে; অর্থাৎ (বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম বলে) তখন শয়তান তার অনুচরদেরকে (অনুসারীদেরকে) বলে, আজ না তোমরা (শয়তানের অনুসারীরা) এ ঘরে রাত্রি যাপন করতে পারবে, আর না খাবার পাবে।’

অন্যথা যখন সে প্রবেশ কালে আল্লাহ তাআলাকে স্মরণ করে না (অর্থাৎ বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম বলে না), তখন শয়তান বলে, তোমরা (শয়তানের অনুসারীরা) রাত্রি যাপন করার স্থান পেলে। আর যখন আহার কালেও আল্লাহ তাআলাকে স্মরণ করে না (অর্থাৎ বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম বলে না), তখন সে (শয়তান) তার অনুসারীদেরকে বলে, তোমরা রাত্রিযাপন স্থল ও নৈশভোজ উভয়ই পেয়ে গেলে। (মুসলিম ২০১৮, আবু দাউদ ৩৭৬৫)

মহান আল্লাহ তায়ালা যেন প্রতিটি মুসলমানকে সঠিকভাবে আমল করার তাওফিক দান করেন। আমীন

মেয়েদের এই কাজগুলো দেখে ছেলেরাও লজ্জা পেয়ে গেছে, হেসে মরবেন দেখুন একবার । বাচ্চারা দেখো না ছবিগুলো

আজ আমরা আপনাদের এমনই কিছু ছবি দেখাবো যেগুলি দেখলে আপনি অবাক হবেন এবং হাসবেন।

যেগুলি শুধু লজ্জাজনক নয় বরং হাস্যকরও।এই ছবিগুলি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হচ্ছে।এই মেয়েগুলোর আজ কীর্তিকলাপ দেখলে আপনি মাথায় হাত রাখবেন।

আসুন দেখে নিন এমন কিছু ছবি যা দেখলে হেসে লুটোপুটি খাবেন

ওহ! এই পেছনের মেয়েটা এমন কি করছে যাতে সামনে কনে সেজে থাকা মেয়েটা এত আনন্দ পাচ্ছে?

OMG এবার থামো খুব মজা পেলাম।

আরেহ মামনি গুলো মুখতো দেখাও।

মেয়ে হয়ে ছেলেদের মত কেন করছো?একটু তো লজ্জা করো।

আয়নাকে কেও এত ভালোবাসেনা বোধহয়। এবার ছেড়ে দাও।

ছিঃ ছিঃ হাতির বাচ্চাটা এসব কি করছে।

ম্যাডাম বাইকে বসার আগে একবার পেছন দিকটা ঠিক করুন।

ম্যাডাম রেললাইনের উপর থেকে উঠে যান নাহলে ট্রেন চলে আসবে।

ম্যাডাম এটা গাধা আপনি একে চুমু দেওয়ার কি পেলেন? একটা বয়ফ্রেন্ড খুজেনিন।

একেই বলে টিম ওয়ার্ক..

টিম ওয়ার্কের এর থেকে বড়ো উদাহরণ আর পাওয়া যাবেনা।তবে শেষ মেয়েটা কি ভুল করেছিল? গোল হয়ে বসলেই ত ভালো হত।

মেয়েরা ছেলেদের থেকে কম কিছু নয়। এই ছবিটি তারই প্রমান।

আঙ্গুল কাকে দেখাচ্ছেন ম্যাডাম? ওটা তো জানোয়ার আর আপনিও।

দুস্টু বাচ্ছা

বন্ধুদের সাথে মজা করার সময় আপনা মাঝে মাঝে নিজেদের লিমিট ক্রশ করে যায় এবং পরে তার জন্য পস্তায়। এই ছবিটি তার অন্যতম উদাহরণ।
মেয়েদের এরকম অনেক অশ্লীল ছবি সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল হয়েছে। এরকম ছবির জন্য তাদের অনেক ক্ষতিও হয়েছে।

রমজান মাসে তো জাহান্নামের দরজা বন্ধ থাকে, তাহলে রমজান মাসে যে কোন ধর্মের মানুষ মারা গেলে কি জান্নাতে যাবে

সকল প্রশংসা আল্লাহর, যিনি জান্নাতের ওয়াদা করেছেন এবং জাহান্নামের ব্যাপারে সতর্ক করেছেন….. সুতরাং যে ব্যক্তি জাহান্নামের আগুন থেকে মুক্ত হলো এবং জান্নাতে প্রবেশ করলো সে মহা সফলতা অর্জন করলো…। আবারো ঐ আল্লাহ পাকের প্রশংসা যিনি আমাদেরকে জান্নাতের পথে আহবান করছেন। আল্লাহ সুবহানাহু বলেন:
﴿ وَٱللَّهُ يَدۡعُوٓاْ إِلَى ٱلۡجَنَّةِ وَٱلۡمَغۡفِرَةِ بِإِذۡنِهِۦۖ﴾ [البقرة: من الآية 221] .
‘‘আল্লাহ তাঁর অনুমতিক্রমে জান্নাত ও মাগফিরাতের দিকে আহবান করছেন’’। [সূরা আল বাক্বারাহ: ২২১]

আকস্মিক ঘটে যাওয়ার এই ১৫ টি মজার ছবি যে গুলো আপনার জীবনেও ঘটতে পারে।

কখনও কখনও আমরা জীবনে কিছু নির্দিষ্ট ইভেন্ট যা সম্পর্কে আমরা কখনোই পরিমাণ নির্ণয় কিন্তু করার প্রয়াস করবেন না যদি একটি খারাপ ঘটনা কাল, আপনি কি আমাদের সাথে থাকব হিসাবে আমরা চিন্তা করতে একই জিনিস কখনোই আমাদের সঙ্গে খারাপ আমার জীবনে ঘটেছে ঝোঁক সেই সময়ে, আমরা উপরের জিনিসটির সাথে একই জিনিস করি, আবার এমন জীবন কখনোই হতে পারে না।

সত্যিই রাখা, আমাদের আমাদের মন একটা সময় Chaiye একটি সময়ে হারিয়ে ব্যক্তি আপনার মস্তিষ্ক Sntuln যেহেতু পারবেন এ শক্তিশালী রাখা এবং তারপর কিছু এবং জগাখিচুড়ি একই হয়ে যায়।

তাই আজ আমরা আপনার জন্য কিছু ছবি আনা হয়েছে, যা আমাদের পয়েন্ট প্রমাণ করে।

এখন মনে কর এটা কে সোজা করতে পারে

এই সিচুয়ান পরিত্রাণ পেতে কিভাবে?

আমরা যারা আগুনের পরিবর্তে ছবি তুলছি তাদের সালাম করি

Shnichkers! সব সময়ে না

এটি দেখার পরে, আমি পৃথিবীতে বাস করতে চান না।

আমরা এই ছেলে কখনও আবার এটি পেতে হবে না মনে হয়

এই ভাই ভাই কি ঘটেছে

আমি সত্যিই এই মেয়েদের জন্য দুঃখিত

এখন এটি কোনও ব্যবহারের জন্য নয়

এই সব সত্যিই যথেষ্ট ভয়ানক হয়

12. যদি আপনি আপনার চোখ খোলা রাখেন না, এটি ঘটতে পারে।

এটা ঠিক নয়

করিয়া বা করের ঘরে কি কি করতে হবে

দিপিকা পাডুকানের এই গোপন ক্যামেরায় তোলা ছবিগুলো ইন্টারনেটে ভাইরাল হচ্ছে দেখেনিন, মিস করবেন না।

দীপিকা এই মুহূর্তে বলিউডের সবচেয়ে সফলদের তালিকায় প্রথমদিকে রয়েছেন। তিনি নিজেদের কেরিয়ার শুরু করেছিলেন মডেলিংয়ের জগতে পা রেখে। [বলিউডের ২০ জন অভিনেত্রীদের বিকিনি অবতার!

অনেক কম বয়সে মডেলিংয়ে নামেন দীপিকা। দশম শ্রেণিতে পড়তে পড়তেই ব্যাডমিন্টনকে ছেড়ে মডেলিংকেই নিজের কেরিয়ার হিসাবে বেছে নেন তিনি। বলিউডে পা রাখার আগে দীপিকা কিংফিশার ক্যালেন্ডারের বিখ্যাত মডেল ।

পরে হিমেশ রেশমিয়ার একটি মিউজিক ভিডিওতে দীপিকাকে দেখে ‘ওম শান্তি ওম’ সিনেমায় তাঁকে অভিনয়ের প্রস্তাব দেন পরিচালক ফারহা খান।

বাকিটা ইতিহাস দীপিকার বলিউডের শুরু দিনগুলিতে তোলা কয়েকটি মুহূর্ত গোপনে ধরা পড়েছে পাপারাৎজীদের ক্যামেরায়। নিচের স্লাইডে দেখে নিন তারই কয়েকঝলক।

বলিউড বাদশা শাহরুখের সঙ্গে দীপিকা। তাঁর প্রথম সিনেমাও কিং খানের সাথে ।

হট ফটোশ্যুটে
অভিনেত্রী হওয়ার আগে সুপার মডেল ছিলেন দীপিকা। এখনও তিনি কোনও দিক থেকে কম যান না।

সিনেমার প্রমোশনে
‘বচনা অ্যায় হাসিনো’ সিনেমার প্রমোশনে রণবীর কাপুর ও অন্যান্যদের সঙ্গে। এই সিনেমার শ্যুটিংয়ের সময়ই দুজনের প্রেমপর্বও শুরু হয়েছিল।

সিনেমার সেটে
দীপিকার প্রথম বলিউড সিনেমা ওম শান্তি ওমের সেটে শাহরুখের সাথে ।

“পদ্মাবতী” সিনেমার ট্রেইলার প্রকাশের পর থেকে ভক্তদের আন্তরিক শুভেচ্ছায় সিক্ত হয়ে আছেন রানি পদ্মিনীর চরিত্রে অভিনয় করা দীপিকা পাড়ুকোন। অভিনয়ের পাশাপাশি সৌন্দর্যের প্রশংসাও পেয়ে যাচ্ছেন তিনি। এমন এক পরিস্থিতিতে এই অভিনেত্রী জানান, “বাবা আমার জন্যে বর খুঁজছেন।”

মুম্বাইয়ে হেমা মালিনীর জীবনীগ্রন্থ “বিয়ন্ড দ্য ড্রিম গার্ল” এর প্রকাশনা অনুষ্ঠানে এসে “রোমান্টিক সম্পর্ক বেশ জটিল” বলে মন্তব্য করেন দীপিকা।সে দিপিকার সাথে বলিউড দিপিকার কোনো মিল খুঁজে পাওয়া সম্ভব নয়, যারা ছিলো সেদিন সেই স্পটে, তারাই এটী ভালো বলতে পারবে ।

প্রথিতযশা অভিনেত্রী হেমা মালিনীর বাবা ভিএসআর চক্রবর্তী মেয়ের জন্যে পাত্র চেয়ে পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়েছিলেন – দেখুন